Our Clients

Branch Name : Gobindogonj,   Rangpur
Branch Code : 065

" রেশমা বেগমের প্রেরণার উৎস ডিএমসিবি "

ডিএমসিবিএল আমাকে স্বচ্ছলতার পথ দেখিয়েছে। একদিকে পরিবারের অস্বচ্ছলতা অন্যদিকে পূজির অভাবে ব্যবসা আর চলছেনা। এরই মধ্যে পরিচয় হল " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর গোবিন্দগঞ্জ শাখার ফিল্ড অফিসার জনাব মোঃ মোতালেব হোসেনের সাথে। তার মাধ্যমে জানতে পারলাম ব্যাংকটি সৎ ও নিষ্ঠাবান ব্যবসায়ীদের সহজ শর্তে বিনা জামানতে বিনিয়োগ প্রদান করে থাকে। ফিল্ড কর্মকর্তার কথা অনুযায়ী ব্যাংকে গিয়ে কথা বলি।
শাখা ব্যাবস্থাপক জনাব মোঃ তোফাজ্জল হোসেনকে ব্যবসার বিস্তারিত জানালে তিনি সব কিছু জেনে গত ০১/১২/২০১৪ইং তারিখে আমাকে ৪৫,০০০/- হাজার টাকা বিনিয়োগ প্রদান করেন। এরপর আর আমাকে পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একে একে বিনিয়োগ নিয়ে ব্যবসা বাড়িয়েছি এবং নিয়মিত ভাবে কিস্তির টাকা পরিশোধ করছি। অবশেষে ২০১৫ সালের ২৪শে ফ্রেরুয়ারী ৬৫,০০০/- হাজার টাকা বিনিয়োগ নিয়ে ব্যবসাকে আরও সম্প্রসারন করেছি। ইতিমধ্যে আমি টেইলারিং থেকে রেডিমেট গার্মেন্টস এর ব্যবসা শুরু করেছি। চারদিক থেকে সফলতা এসেছে আমার জীবনে। আমার এসব সফলতার পিছনে প্রেরনা হিসাবে কাজ করেছে " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর গোবিন্দগঞ্জ শাখার শাখা ব্যবস্থাপক সহ প্রতিটি কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ। তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি এই ব্যাংকের উত্তোরত্তর সাফল্য কামনা করি।

Branch Name : Noapara ,   Khulna
Branch Code : 067

" ডিএমসিবিএল, আমার মূলধনের অভাব পূরন করেছে "

যশোর জেলার নওপাড়া বাসষ্ট্যান্ড এলাকার মেসার্স শারমিন এন্টারপ্রাইজ এর স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ মিজানুর রহমান বলেন- " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর নওপাড়া শাখার বিনিয়োগ কাজে লাগিয়ে তিনি এখন সফল ব্যবসায়ী। এ কারনে তিনি ব্যাংকটির দীর্ঘায়ু কামনা করছেন।
যাবতীয় ফ্যান ফ্রিজ টেলিভিশন সামগ্রী বিক্রেতা মোঃ মিজানুর রহমান পুঁজির অভাবে ব্যবসা সম্প্রসারন করতে পারছিলেন না। একদিন তিনি " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর নওপাড়া শাখার ফিল্ড অফিসার বাবু অজিত রায় এর মাধ্যমে জানতে পারলেন ব্যাংকটি সৎ ও নিষ্ঠাবান ব্যবসায়ীদের সহজ শর্তে বিনা জামানতে বিনিয়োগ প্রদান করে। ফিল্ড অফিসার এর আমন্ত্রনে মিজানুর রহমান একদিন ব্যাংকে গিয়ে ব্যবস্থাপক মোঃ সুলতান এর সাথে দেখা করে তার ব্যবসার বিস্তারিত জানালেন। শাখা ব্যবস্থাপক মিজানুর রহমানের বিস্তারিত জেনে প্রথমে ২.০০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ দিলেন। এর পর আর মিজানুর রহমানকে পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নী। একে একে বিনিয়োগ নিয়ে প্রতিবারই সময়মত পরিশোধ করেছেন। অবশেষে গত ২০১৫ সালের ০১ মার্চ ৭.০০ লক্ষ টাকার বিনিয়োগ নিয়ে তার ব্যবসাকে সম্প্রসারন করেছেন। মিজানুর রহমান এখন একজন সফল ব্যবসায়ী। তার এ সাফল্যের পিছনে রয়েছে দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ এর নওপাড়া শাখার বিনিয়োগ সহযোগিতা।

Branch Name : Corporate,   Dhaka
Branch Code : 069

" কসমেটিক্স জগতের অন্যতম মেসার্স শিমুল শ্রাবন এন্টারপ্রাইজ "

ঢাকার কাওরান বাজার সুপার মার্কেটের মেসার্স খন্দকার মেন্দি মিয়া বস্ত্রালয়ের মালিক খন্দকার মশগুল হুসাইন আসিক বলেন দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ আমার স্বপ্ন পুরন করেছে। জনাব খন্দকার মশগুল হুসাইন আসিক একজন ক্ষুদ্র কাপড়ের ব্যবসায়ি ছিলেন।তাঁর স্বপ্ন ছিল তার এই ক্ষুদ্র ব্যবসাকে বড় পরিসরে দাঁড় করানো। কিন্তু শত চেষ্টাতেও তাঁর স্বপ্ন পুরণ হচ্ছিল না।
অবশেষে একদিন দেখা মিললো দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ এর একজন ফিল্ড অফিসার জনাব মোঃ আবু সিনার। তাঁর কাছ থেকে শুনতে পেলেন ডিএমসিবিএল এর সহজ শর্তে জামানত বিহীন বিনিয়োগের কথা।তিনি পরদিনই দেখা করেন কর্পোরেট শাখার ব্যবস্থাপক জনাব মোঃ সাইফুল ইসলামের সংগে। শাখা ব্যবস্থাপক জনাব মোঃ সাইফুল ইসলাম, খন্দকার মশগুল হুসাইন আসিক এর ব্যবসার ইতিবৃত্তান্ত শুনে তাকে প্রাথমিক ভাবে গত ০৪/০৫/১১ এক লক্ষ টাকা বিনিয়োগ প্রদান করেন। সেই টাকা তাঁর ব্যবসায় যোগান দিয়ে ব্যবসাকে চাঙ্গা করেন।তারপর আর তাঁকে পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি।এইভাবে তিনি পর পর পাঁচবার বিনিয়োগ গ্রহন করেন।সর্বশেষ বিনিয়োগ নিয়েছেন দুই লক্ষ টাকা। জনাব খন্দকার মশগুল হুসাইন আসিক এখন তাঁর ব্যবসাকে মনের মত করে দাড় করিয়েছেন।তাঁর স্বপ্ন পুরণ হয়েছে।আর এর সবই সম্ভব হয়েছে দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ এর সার্বিক সহযোগিতায়।এই জন্য তিনি প্রতিষ্ঠানটির নিকট ঋনী বলে জানিয়েছেন্।

Branch Name : Borguna,   Barisal
Branch Code : 072

" ডিএমসিবি আমার ভাগ্যের চাকা ঘুড়িয়ে দিয়েছে "

আমি মোঃ মন্টু হোসেন এক সময়ের একজন ক্ষুদ্র মাছ ব্যবসায়ী। বর্তমানে " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর বরগুনা শাখার একজন বিনিয়োগ গ্রহিতা। অল্প পূজি নিয়ে শুরু করে অনেক চেষ্টা করেও যখন ব্যবসা দাঁড় করাতে পারছিলাম না তখন স্ত্রীর গহনা বন্ধক রেখে উচ্চ সুদে কিছু টাকা ঋণ গ্রহন করি। ফলে ব্যবসায় যা লাভ হতো সেই লাভের টাকা সুদের টাকা দিতে ফুরিয়ে যেত। এমন সময় পাশ্ববর্তী ব্যবসায়ী এবং উক্ত এলাকার ফিল্ড অফিসার জনাব মোঃ শফিকুজ্জামান এর মাধ্যমে জানতে পারলাম " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর জামানত বিহীন ঋণ/ বিনিয়োগ প্রদানের কথা।
আমি ব্যবসায়ী বন্ধুর সাথে অফিসে গিয়ে শাখা ব্যবস্থাপক জনাব মাইদুল ইসলাম এর সাথে দেখা করে বিনিয়োগ গ্রহনের ইচ্ছা প্রকাশ করি। তিনি আমার ব্যবসা দেখে আমাকে প্রথমে জামানত বিহীন ২০,০০০/- টাকা ঋণ/ বিনিয়োগ প্রদান করেন। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আমি নিয়মিত ভাবে বিনিয়োগের টাকা পরিশোধে সমর্থ হই। পূনরায় আবার বিনিয়োগ গ্রহন করার পর আমার ব্যবসা আরও বড় করি। এভাবে বিনিয়োগ গ্রহন করে আজ আমার আর পূঁজি নিয়ে কোন চিন্তা করতে হয় না। দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ এর জামানত বিহীন ঋণ/ বিনিয়োগ আমার ভাগ্য পরিবর্তনে মূখ্য ভূমিকা রেখেছে। তাই আমি " দি ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিঃ " এর সার্বিক সফলতা কামনা করি।

< Prev12345678910111213Next